আমলকি খাওয়ার উপকারিতা - ‍AjkerStatus

আমলকি খাওয়ার উপকারিতা পোষ্টে আপনাদের স্বাগতম। আমলকি আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী ভেষজের মধ্যে ১ টি। আমলকি প্রতিদিনই খাওয়া যায়। এর কোন পার্শপতিক্রিয়া নেই। আমলকির উপকারিতা এবং আমলকির গুণাগুণ তা নিয়ে আজকের পোষ্টটি সাজানো হয়েছে। 

আমলকি খাওয়ার উপকারিতা
আমলকি খাওয়ার উপকারিতা

আমলকির উপকারিতা

১। শরীরে ভিটামিন সি এর ঘাটতি মেটাতে আমলকির জুড়ি নেই। ভিটামিন সি এর অভাবে যেসব রোগ হয়, যেমন - স্কার্ভি, মেয়েদের লিউকরিয়া, অর্শ প্রভৃতি ক্ষেত্রে আমলকি খেলে উপকার পাওয়া যায়।

২। ছেলে ও মেয়েদের চুল পড়া রোধ করতে আমলকি খুব ভালো কাজ করে। আমলকী চুলের টনিক হিসাবে কাজ করে। বিভিন্ন ধরনের তেল তৈরিতে আমলকি ব্যবহার হয়। আমলকি থেকে তৈরী তেল মাথা ঠান্ডা রাখে। কাঁচা বা শুকনো আমলকি বেটে একটু মাখন মিশিয়ে মাথায় লাগালে খুব তাড়াতাড়ি ঘুম আসে। কাঁচা আমলকি বেটে রস প্রতিদিন চুলে লাগিয়ে দুতিন ঘন্টা রেখে দিতে হবে। এভাবে ১ মাস মাখলে চুলের গোড়া শক্ত, মাথায় খুশকি, চুল পড়া এবং অকালে চুল পাকা বন্ধ হয়ে যাবে।

৩। আমলকি খেরে হার্টের রোগীদের ধরফরানি কমবে। টাটকা আমলকি তৃষ্ণা মেটায়, ঘন ঘন প্রস্রাব হওয়া বন্ধ করে, পেট পরিষ্কার করে। 

৪। আমলকি খেলে মুখে রুচি বাড়ে। এছাড়া পেটের পীড়া, সর্দি, কাশি ও রক্তহীনতার জন্যও খুবই উপকারী।

৫। পিত্ত বিষয়ম যেকোন রোগে অল্প আমলকি এর সাথে মধু মিশিয়ে খেলে অনেক উপকার হয়।

৭। বারবার বমি হলে শুকনো আমলকি এককাপ পানিতে ভিজিয়ে ঘন্টা দুই বাদে সেই পানিতে একটু শ্বেত চন্দন ও চিনি মিশিয়ে খেলে বমি বন্ধ হয়। নিয়মিত কয়েক টুকরো করে আমলকি খেলে চোখের দৃষ্টিশক্তি ঠিক থাকে। আমলকি খিদে বাড়ায়, শরীর ঠান্ডা রাখে।

৮। আমলকি ব্লাডসুগার লেভেল নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে সাহাযতা করে। কোলেস্টেরল লেভেলেও কম রাখাতে এর যথেষ্ঠ ভূমিকা রয়েছে।

৯। আমলকীর ফল ও পাতা দুটিই ঔষধ রুপে কাজ করে। লিভার ও জন্ডিস রোগেও এই ফলটি ভালো কাজ করে। শুকনো আমলকি রাতে ভিজিয়ে রেখে সকাল বেলা খালি পেটে খেলে পেটের সমস্যা দুর হয়ে যাবে। 

১০। আমলকি বহুমুত্র রোগের ক্ষেত্রেও ভালো কাজ করে। এই ফলটি স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারি।


আশা করি, আমলকি খাওয়ার উপকারিতা (amloki khawar upokarita) পোষ্টটি ভালো লেগেছে। আমলকির গুনাগুন এবং আমলকী খেলে কি হয় বিস্তারিত এই পোষ্ট থেকে জানতে পেরেছেন।